অন্ধ্রের কারাপ্পা জেলায় আচমকাই বানে ভেসে গেলেন ৩০ পুণ্যার্থী, মৃত ৩

This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

অন্ধ্রের কারাপ্পা জেলায় একটি নদীতে আচমকাই বানের তোড়ে বাঁধ ভেঙে ভেসে গেল গ্রাম। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই জলের তোড়ে ভেসে নিখোঁজ ৩০ জন। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে তিন জনের। তবে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।

আবহাওয়াবিদদের মতে বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ শুক্রবার বিকাল ৪টে নাগাদ পুদুচেরি ও চেন্নাইয়ের উপকূল এলাকায় অবস্থান করেছিল। অন্ধ্রপ্রদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপন দফতরের কমিশনার কে কান্নাবাবু একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, চিত্তর, প্রকাশম, অনন্তপুরে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। এর সঙ্গেই ৪৫-৬৫ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়াও বইছে।

This news is sponsored by STP Tax Consultant

ভেঙ্কটেশ্বরের মন্দির তিরুমালায় ব্যাপক বন্যার ফলে শত শত তীর্থযাত্রী আটকে পড়েছে। তিরুমালা পাহাড়ের মূল মন্দির সংলগ্ন চারটি রাস্তা প্লাবিত হয়েছে। পুণ্যার্থীরা নিজেদের বাঁচাতে উঁচু জায়গায় ওঠার চেষ্টা করছেন প্রাণপনে। যদিও ভীষণ জলের তোড়ের মুখে পড়ে নিজেদের সামলাতে পারছেন না। জানা গিয়েছে হড়পা বানে থুরুমালা পাহাড়ের বহু গাছ উপড়ে গিয়েছে। থুরুমালার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে।

অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগনমোহন রেড্ডির জেলা কারাপ্পা। সেখানে বাঁধের নির্মাণগত কিছু ত্রুটি এবং বেশ কিছু অনিয়মই এই হড়পা বান ডেকে আনে বলে অভিযোগ।  বৃষ্টির জন্য অন্ধ্রপ্রদেশে-সহ তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরিতেও বন্যার সতর্কতা জারি করেছিল কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। কেন্দ্রীয় জল কমিশন সতর্ক করেছিল বাঁধ নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষকেও। মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগনমোহন রেড্ডি জরুরি ভিত্তিতে হড়পা বানে বিপর্যস্ত জেলাগুলির জেলা শাসকদের সঙ্গে বৈঠক করেন। উদ্ধারকাজের পাশাপাশি ত্রাণ বণ্টনের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + four =