ফোর্ট উইলিয়ামে অনুষ্ঠিত হল ৭৩ তম NCC দিবস

ছবি-সন্দীপন দত্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস
This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

দেবব্রত সেনগুপ্ত ও সন্দীপন দত্ত: কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামে অনুষ্ঠিত হল ৭৩ তম NCC দিবস।

 

This news is sponsored by STP Tax Consultant

 

ন্যাশনাল ক্যাডেট কর্পস অফ ইন্ডিয়া (NCC) হল বিশ্বের বৃহত্তম ইউনিফর্ম পরিধানকারী যুব সংগঠন, যেখানে সারা দেশের স্কুল ও কলেজের ১৪.৫ লক্ষেরও বেশি ক্যাডেট রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে, বর্তমানে ৮৩৯টি স্কুল এবং ২৩৪টি কলেজে এক লক্ষেরও বেশি এনসিসি ক্যাডেট রয়েছে এবং সমস্ত জেলা জুড়ে প্রায় ২০ লক্ষ প্রাক্তন এনসিসি ক্যাডেট রয়েছে ৷ এন.সি.সি-র দৃঢ় এবং ঐকান্তিক প্রচেষ্টা “ইউনিটি অ্যান্ড ডিসিপ্লিন”, অর্থাৎ একতা এবং নিয়মানুবর্তিতার অভ্যেস গড়ে তোলার মাধ্যমে তরুণদের ভবিষ্যত নেতৃত্ব গুণের অধিকারী এবং স্বদেশ গঠনের জন্য মানসিক ভাবে প্রস্তুত করে তোলা। এনসিসি বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ক্যাডেটদের নেতৃত্বের বৈশিষ্ট্য, প্রতিভা এবং দক্ষতার বিকাশের পাশাপাশি সামাজিক সচেতনতা এবং সামাজিক একাত্মবোধের জন্য প্রশিক্ষণ মূলক কার্যক্রমে অংশগ্রহণের ব্যাপক সুযোগ দিতে সচেষ্ট থাকে যা সমাজ ও দেশের সেবা করার জন্য উৎসর্গের চেতনাকে উৎসাহিত করে ।

ছবি-সন্দীপন দত্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

 

এনসিসি ডিরেক্টরেট পশ্চিমবঙ্গ ও সিকিম ২৮ শে নভেম্বর ২০২১ তারিখে ফোর্ট উইলিয়ামে ৭৩ম এনসিসি দিবস উদযাপন করল। ১৩০০ রও বেশি ক্যাডেট, প্রতিরক্ষা অফিসার, স্টাফ এবং সহযোগী এনসিসি অফিসার (এনসিসি থাকা প্রতিষ্ঠানের অধ্যাপক এবং শিক্ষক) এদিনের এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। উপস্থিত ছিলেন তিন বাহিনীর উচ্চপদস্থ অফিরাররা।

মেজর জেনারেল ইউ এস সেনগুপ্ত (অতিরিক্ত মহাপরিচালক, পশ্চিমবঙ্গ ও সিকিম অধিদপ্তর)  এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বিভিন্ন এনসিসি ক্রিয়াকলাপে তাদের অনুকরণীয় পারফরম্যান্সের জন্য ক্যাডেট এবং কর্মীদের অভিনন্দন জানালেন।

এছাড়াও ক্যাডেটদের মধ্যে জাতির জন্য জীবন উৎসর্গ করার সত্যিকারের চেতনায়, পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য রক্ত ​​সঞ্চালন কেন্দ্রের সমন্বয়ে ২৮ শে নভেম্বর একটি বিশাল রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হচ্ছে, যেখানে ১৫০ জন ক্যাডেট মহৎ উদ্দেশ্যে রক্তদান করছেন।

উদযাপনের অংশ হিসাবে, ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’, ‘পরিচ্ছন্ন ভারত’ এবং ‘বেটি বাঁচাও-বাটি পড়াও’ থিমের ওপর অঙ্কন ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতাও অনুষ্ঠিত হয়েছে, যার জন্য এনসিসি দিবসে পুরস্কার দেওয়া হল।

 

এনসিসি ক্যাডেটরা ব্যাটল ড্রিল ডেমোনস্ট্রেশন, অ্যারো মডেল অ্যারোবেটিক্স এবং পশ্চিমবঙ্গের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য প্রদর্শন করে সামরিক সরঞ্জাম প্রদর্শন, ডগ স্কোয়াড, বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড এবং কলকাতা পুলিশের কমান্ডো উইং দ্বারা প্রদর্শনের ক্ষেত্রে পথনির্দেশক কর্মজীবনের সুযোগগুলি প্রদর্শন করে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের দক্ষতা দেখাল।

এদিন সেকশন ব্যাটেল ড্রিল প্রদর্শনী তে দেখানো হলো পরবর্তী পর্যায়ে দেখানো হলো রিমোট কন্ট্রোল প্লেন এর মাধ্যমে মডেল এরোপ্লেনের উড়ান।

ছবি-সন্দীপন দত্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

কলকাতা পুলিশের উগ্রপন্থিদের কিভাবে মোকাবেলা করা হয়, সেইসব পদ্ধতিও দেখানো হলো। প্রদর্শিত হল ডগ স্কোয়াড এর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত তীক্ষ্ণ বুদ্ধি সম্পন্ন কুকুরের আগুনের মধ্যে লাফিয়ে যাওয়ার পদ্ধতি, কি করে উগ্রপন্থিদের ধরে, উগ্রপন্থিদের ফেলে যাওয়া সম্ভাব্য বোমা কিভাবে নিষ্ক্রিয় করা হয়, তা দেখালো কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা।

ছবি-সন্দীপন দত্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

অনুষ্ঠানের পরবর্তী পর্যায়ে শুরু হলো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রথমে নৃত্য পরিবেশন। নৃত্যের মাধ্যমে দেখানো হল পরিবেশ দূষণ রোধে গাছের ভূমিকা।

ছবি-সন্দীপন দত্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

 

গাছ কেটে ফেলার ফলে কিভাবে শ্বাসের সমস্যায় মানুষ জর্জরিত হয় তা সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

গঙ্গার তীরবর্তী বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষের একত্রিত গানের মাধ্যমে পরিবেশিত হলো সুন্দর একটি “বিবিধের মাঝে মিলন মহান” এর উপস্থাপনা। স্বাধীনতা উপলক্ষে দেখানো হলো দেশাত্মবোধক নৃত্য এবং সঙ্গীত।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 2 =