কলকাতার দুর্গাপুজোকে স্বীকৃতি! বর্ণময় পদযাত্রার মাধ্যমে ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ তিলোত্তমার

ছবি-সুদীপ চন্দ, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস
This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

সুদীপ চন্দ ও দেবব্রত সেনগুপ্ত:  শীতের শহরে কলকাতায় ফিরে এল আশ্বিনের মেজাজ। সম্প্রতি ইউনেস্কোর আবহমান সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে কলকাতার দুর্গাপুজো। UNESCO’র তরফে জানানো হয়, ধর্ম এবং শিল্পের মেলবন্ধনের ভিত্তিতে ‘কলকাতার দুর্গাপুজো’কে বিশেষ সাংস্কৃতিক হেরিটেজের তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে।

 

This news is sponsored by STP Tax Consultant

 

সেই আনন্দ ভাগ করে নিতেই রাজপথে পা মিলিয়েছেন সেই স্বীকৃতিকে উদযাপন করতে বুধবার পদযাত্রা করলেন কলকাতার বিভিন্ন পুজো কমিটির উদ্যোক্তারা (Durga Puja Organizers of Kolkata)। এই পদযাত্রার পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছিল ‘গর্বের বার্তা… হোক পদযাত্রা’।

ছবি-সুদীপ চন্দ, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

 

এদিন কলকাতার অ্যাকাডেমি অফ ফাইন আর্টসের সামনে থেকে শুরু হয়ে ডোরিনা ক্রসিং পর্যন্ত যায় এই বর্ণাঢ্য পদযাত্রা। ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিভিন্ন রঙিন পোস্টার থেকে বেলুন, হাজির ছিল সবই। মিছিলে পা মেলান মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, রাসবিহারীর বিধায়ক দেবাশিস কুমার প্রমুখ।

ছবি-দেবব্রত সেনগুপ্ত, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

পুজোর আনন্দের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে ঢাক-ঢোল বাজিয়ে বর্ণময় এই পদযাত্রা এগিয়ে যায়। শীতের দুপুরের তিলোত্তমার রাস্তাতেও যেন হালকা হেমন্তের ছোঁয়ায় গা ভাসান সকলে।

পদযাত্রায় অংশ গ্রহণকারী উল্লেখযোগ্য শিল্পী শ্রী প্রশান্ত পাল এই সম্মান কে বাংলার তথা সমস্ত ভারতবর্ষের প্রাপ্য সম্মান বলে মনে করেন। তিনি জানান, তার নিজের প্রায় ২৩ বছর থিমের পুজোর সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিজ্ঞতা। এইরকমই বহু বছর আগে থেকে এই পুজোকে কেন্দ্র করে শিল্পীরা নিয়মিত তৈরি করে চলেছেন তাদের শিল্পের সম্ভার।

যুগ যুগ ধরে শিল্পী, উদ্যোক্তা, কর্মকর্তা, পুজো কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ থেকে শুরু করে পুজোর সঙ্গে যুক্ত সকল মানুষের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং অকৃত্রিম ভালোবাসা, আবেগ সবকিছু আদায় করে এনেছে এই সম্মান।

 

UNESCO’র তরফে জানানো হয়, ধর্ম এবং শিল্পের মেলবন্ধনের জন্যেই দুর্গাপুজোকে এই তকমা দেওয়া হয়েছে। আর এই আনন্দ-সংবাদের জেরে শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি  ও বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

দুর্গাপুজোকে UNESCO স্বীকৃতি দেওয়ার পরই, ট্যুইটে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলার জন্য গর্বের মুহূর্ত। বিশ্বের প্রতিটি বাঙালির কাছে, দুর্গাপুজো উৎসবের চেয়ে অনেক বেশি আবেগের। যা সবাইকে এক করে। দুর্গাপুজো এখন, বিশেষ সাংস্কৃতিক হেরিটেজের তালিকায় যুক্ত হয়েছে। এতে আমরা সবাই আনন্দিত।

বাংলায় ট্যুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, প্রত্যেক ভারতীয়ের জন্য গর্ব ও আনন্দের বিষয়। দুর্গাপুজো আমাদের সাংস্কৃতিক ও আত্মিক বৈশিষ্ট্যর শ্রেষ্ঠ দিকগুলিকে তুলে ধরে। আর, কলকাতার দুর্গাপুজোর অভিজ্ঞতা প্রত্যেকের লাভ করা উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

sixteen + eleven =