বিশ্বকাপে ভারতের হার অর্থনীতিতে কেমন প্রভাব ফেলছে

This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

শান্তি রায়চৌধুরী : বিশ্বকাপে ভারতের খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য ভারতের সঙ্গে ক্রিকেট–সংশ্লিষ্ট আরও অনেকের ব্যবসা পড়েছে হুমকির মুখে এসে দাঁড়িয়েছে। ম্যাডিসন মিডিয়া গ্রুপের অংশীদার এবং প্রধান নির্বাহী বিক্রম সাখুজা ভারতের এই হারের কারণে টেলিভিশনগুলোর রেটিং কমে যাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, ‘ক্রিকেট ভারতের জনগণের কাছে নেশার মতো। বিশ্বকাপে দলের এমন বিপর্যয় চ্যানেলগুলোর ওপর চরম প্রভাব ফেলবে। যখন ভারত জিততে থাকে, তখন চ্যানেলগুলোর রেটিং বেড়ে যায় এবং হারলে কমে যায়। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টেন পর্বে চার ম্যাচের মধ্যে তিন ম্যাচে জয় পায় ভারত। ফলে তখন পুরুষ দর্শকেরা বিভিন্ন চ্যানেলে সম্প্রচারিত সুপার টেনের খেলাগুলোকে ৪.৪ রেটিং দিয়েছিল। কিন্তু এবার যেহেতু ভারতের পারফরম্যান্স ভালো হয়নি, ফলে এই বিশ্বকাপের রেটিং ৩ হলেও আমি মোটেও অবাক হব না।

যেসব কোম্পানি খেলা উপলক্ষে চ্যানেলগুলোয় বিজ্ঞাপন দিয়েছিল, তাদের জন্য ভারতের এমন হার বড়সড় ধাক্কার মতোই। কিন্তু কোনোভাবে ভারত যদি সেমিফাইনালে যেতে পারে, তখন আবার রেটিং বেড়ে যাবে। এ কারণে সমর্থক ও বিজ্ঞাপনদাতারা এখন সেই প্রার্থনাই করছেন।

This news is sponsored by STP Tax Consultant

গো-জুপ কোম্পানির মিডিয়া পরিচালক সুশীল অনন্তরমনের মতে এবার বিজ্ঞাপনদাতারা যত খরচ করেছেন, তত পরিমাণ ব্যবসা করতে পারবেন না, ‘যেসব বিজ্ঞাপনদাতা টুর্নামেন্টের শুরুতেই টাইটেল স্পনসর থেকে শুরু করে আরও নানা খাতে এককালীন যে টাকা খরচ করেছেন, তাঁরা অবশ্যই ভারতের এমন হারের জন্য ভুক্তভোগী হবেন। কারণ, ভারত সেমিফাইনালে না গেলে অনেক মানুষ আর খেলা দেখবেন না। এ কারণে তাঁরা তাঁদের পণ্য যে পরিমাণ মানুষের কাছে পৌঁছাবে ভেবেছিলেন, সে পরিমাণ মানুষের কাছে পৌঁছাবে না এবং আশানুরূপ ব্যবসাও হবে না। কিন্তু ভারত যদি অলৌকিক কাণ্ড ঘটিয়ে সেমিফাইনালে চলে যায়, তখন বিজ্ঞাপনদাতাদের চিন্তার কোনো কারণ থাকবে না।’

এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে ভারতীয়রা অন্যান্যবারের তুলনায় একটু বেশিই উত্তেজিত ছিলেন। এই কারণে ব্র্যান্ডগুলোও টেলিভিশন এবং অন্যান্য অনলাইন প্ল্যাটফর্মে বিজ্ঞাপনের পেছনে টাকা খরচ করতে কার্পণ্য করেননি। বিভিন্ন প্রতিবেদন অনুযায়ী, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপলক্ষে স্টার স্পোর্টস বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় প্রায় ১ হাজার কোটি রুপি আয় করেছে। বাইজুস, ড্রিম ইলেভেন, কোকাকোলা, বিমল, রিলায়েন্স ট্রেন্ডজ, আপস্টক্স, ক্রেড ও স্যামসাংয়ের মতো বড় বড় কোম্পানি বিজ্ঞাপন সম্প্রচারের জন্য স্টার স্পোর্টসের সঙ্গে চুক্তি করেছিল। ওয়েব প্ল্যাটফর্ম ডিজনিপ্লাস হটস্টারে বিজ্ঞাপন দেওয়ার মাধ্যমে বিনিয়োগ করেছে ড্রিম ইলেভেন, অপো, মারুতি, ফোনপে ইত্যাদি কোম্পানি। ভারত সুপার টুয়েলভ থেকে বাদ পড়লে তারা প্রত্যেকেই বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × five =