যে চার কারণে বিশ্বকাপে ব্যর্থ ভারত

This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

শান্তি রায়চৌধুরী : সেই ভারত ২০১২ সালের পরএই প্রথম কোনো বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে। কেন এই ব্যর্থতা? শুধু ঢালাওভাবে আইপিএল ও এর জৈব সুরক্ষাবলয়কে অনেকে দায়ী করতে চাইছেন। কিন্তু আইপিএল খেলে আসা ট্রেন্ট বোল্ট, জশ হ্যাজলউড, ডেভিড ওয়ার্নার ও কেইন উইলিয়ামসনরা ঠিকই বিশ্বকাপ মাতাচ্ছেন। তাহলে আর কী কী কারণে বিশ্বকাপে এভাবে ব্যর্থ হলো ভারত?

প্রথমে ব্যাটিং করা:
ভারতের বিখ্যাত ব্যাটিং লাইনআপ রান তাড়া করার জন্য বিখ্যাত। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচেই প্রথমে ব্যাট করেছে ভারত। আর সে দুই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেই পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের নিয়ন্ত্রিত পেস বোলিং ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছে। প্রথম দুই ম্যাচে ১০ ও ৮ উইকেটে হেরেছে ভারত।
এ ব্যাপারে ভারতের বোলিং কোচ ভরত অরুণ জানান, ‘টস খুব মাত্রাহীন সুবিধা দিয়েছে। আর এ কারণেই প্রথমে ব্যাট করা ও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করায় অনেক পার্থক্য। এত ছোট সংস্করণে এমনটা হওয়া উচিত নয়।’

This news is sponsored by STP Tax Consultant

আইপিএল:
১৫ অক্টোবর শেষ হয়েছে আইপিএল। ফলে বিশ্বকাপের জন্য ভারত দলের সবাইকে একত্রে পেয়েছে ১৭ অক্টোবর। তত দিনে বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব শুরু হয়ে গেছে। নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পর আইপিএল ও এর আগে টানা সিরিজ খেলাকে দায়ী করেছিলেন পেসার বুমরা। বোলিং কোচও মানছেন বিশ্বকাপের পরিকল্পনায় খুঁত ছিল ভারতের, ‘টানা ছয় মাস এভাবে খেলা খুব কঠিন। এটা অনেক বড় প্রভাব ফেলেছে।’

মহেন্দ্র সিং ধোনি:
ভারত দলে এমনিতেই বিভক্তির কথা নিয়মিতই শোনা যায়। অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও সহ–অধিনায়ক রোহিত শর্মার মধ্যে দ্বন্দ্ব সুযোগ পেলেই তুলে আনার চেষ্টা করে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। সময়ের সেরা দুই ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিত্বের এই ঠান্ডা লড়াইয়ে এ বিশ্বকাপে আবার যোগ হয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। দলের পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল মাত্রই চতুর্থ আইপিএল জেতা ধোনিকে। একটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা এ অধিনায়কের নিয়োগ ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে হয়েছিল। কিন্তু প্রাক্তন
ব্যাটসম্যান গৌতম গম্ভীর একজন প্রধান কোচ, সহকারী কোচ ও বোলিং কোচ থাকার পরও ধোনির ভূমিকা কী হবে—এ নিয়ে প্রশ্ন রেখেছিলেন।

কোহলির বিদায়:
টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে এ বিশ্বকাপই বিরাট কোহলির শেষ পরীক্ষা। আগেই সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে রাখায়, এটা দলকে কিছুটা হলেও অস্থিতিশীল করেছে। কেউ কেউ তো ধোনির জন্য হলেও বিশ্বকাপ জেতার আহ্বান জানিয়ে দলকে বাড়তি চাপের মধ্যেই ফেলে দিয়েছেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, টুর্নামেন্টের আগে এমন ঘোষণা দলকে আবেগী করে তোলে এবং সেটা দলের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + nineteen =