আপামর বাঙালির ঘরে ঘরে পিঠে পুলির অনুষ্ঠানে খেজুরের রসের ভূমিকা

ছবি-সুদীপ চন্দ, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস
This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

সুদীপ চন্দ: দেবী দূর্গা ভাসানের পরই একটা হাল্কা শীতের আমেজ অনুভূত হয় আর তার পরই নতুন ধান ওঠার পালা চলে আসে। বাঙালি বেড়িয়ে পরে খেজুরের রস ও খেজুর গুড়ের সন্ধানে। ধীরে ধীরে শীত জাঁকিয়ে পড়তে থাকে।

 

This news is sponsored by STP Tax Consultant

 

আপামর বাঙালির ঘরে ঘরে পিঠে পুলির অনুষ্ঠান। সেই পিঠে-পুলি তৈরিতে চাই নলেন গুড়। উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙা অঞ্চলে অবস্থিত তেপুল গ্রামের গৌড়াঙ্গ মন্ডল, তিনি একজন খেজুর রস সংগ্রহকারী। আর সেই রস জাল দিয়ে নলেন গুড় তৈরি করেন। প্রতি বছরই খেজুর গাছ থেকে রস বের করে নলেন গুড় তৈরি করেন।

 

ছবি-সুদীপ চন্দ, নিউজ ইন্ডিয়া প্রেস

তিনি জানান, প্রতি বছর তাকে ১৫ থেকে ২০ টি খেজুর গাছ কিনে নিতে হয়। সেই গাছ থেকে রস নেবার পর কমপক্ষে সাতদিন বিশ্রাম দিতে হয়, একে বলে শুকি। এই শুকি না দিলে খেজুর রসের স্বাদ থাকবে না ফলে নলেন গুড়ের স্বাদও কমে যাবে। এছাড়াও তিনি ওড়ার গুড়ও তৈরি করেন।

 

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে দ্রব্যমূল্যের দাম আকাশ ছোঁয়া কিন্তু গুড়ের দাম সেভাবে পাওয়া যায় না। তবে গত দু’বছর ধরে চলতে থাকা করোনা মহামারীর জেরে ব্যবসায় অনেকটা মন্দা থাকার ফলে লক্ষীর ভাঁড়ে টান পড়েছিল ব্যবসায়ীদের। তবে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই এই শীতের সময় ফের নলেন গুড়ের ব্যবসায় লাভবান হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × three =