বিজেপি শাসিত রাজ্যে মহিলারা নিরাপদ নন, জামিন পেয়ে হুঙ্কার সায়নী ঘোষের

This News is Presented by Shyam Sundar Jewellers

বিজেপি শাসিত রাজ্যে মহিলারা নিরাপদ নন, জামিন পাওয়ার পর একথাই জানালেন সায়নী ঘোষ। তৃণমূলের যুবনেত্রীর প্রতিক্রিয়া, ”আদালতকে ধন্যবাদ। সুবিচার পেলাম। মানুষ দেখছে। সায়নী জামিন পাওয়ায় নিজেদের নৈতিক জয়ই দেখছে তৃণমূল শিবির৷ তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেবের দাবি, সায়নীর বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযোগ যে সাজানো ছিল, তা প্রমাণিত হয়ে গিয়েছে৷ মানুষ বিচার করবে। প্রায় ২৪ ঘন্টা পর জেলমুক্তি তৃণমূল নেত্রী। কিন্তু লড়াইয়ে হারতে রাজি নন তিনি। ত্রিপুরার বুকে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই জারি রাখতে চান তিনি। জামিন পাওয়ার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমনটাই দাবি সায়নী ঘোষের।

সায়নীর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা-সহ একাধিক অভিযোগ করেছিল বিজেপি (BJP)। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাঁকে জেরা করতে হোটেলে হানা দেয় পুলিশ। পরে তাঁকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদের পর সায়নীকে গ্রেপ্তার করে পূর্ব আগরতলা মহিলা থানার পুলিশ। এদিন তাঁকে আদালতে পেশ করে পুলিশ। দু’পক্ষের সওয়াল জবাবের পর ২০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান সায়নী ঘোষ। তবে তদন্তে সহযোগিতা করতে হবে তাঁকে।

This news is sponsored by STP Tax Consultant

জামিন পাওয়ার পর সায়নী বলেন, ‘যাঁরা আমার পাশে ছিলেন তাঁদের প্রত্যেককে ধন্যবাদ৷ গতকাল দিদির সঙ্গেও কথা হয়েছে৷ আমার বিরুদ্ধে যে ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছিল তা প্রমাণিত৷ রাজনৈতিক লড়়াইটা রাজনৈতিক ভাবে হলেই বোধ হয় ভাল হয়৷ মানুষ সবই দেখছেন, ত্রিপুরার মানুষ সময়মতো এর বিচার করবেন৷ এর থেকেই প্রমাণিত ত্রিপুরায় মহিলারা নিরাপদ নয়৷’

বিজেপি শাসিত রাজ্যে মহিলারা নিরাপদ নন বলেও দাবি করেন সায়নী। তাঁর কথায়,”রাতের হামলা এতটা ভয়ঙ্কর হয়ে গিয়েছিল যে ওরা আমায় সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। পুলিস, আধা সামরিক বাহিনী আমার মুখ ঢেকে নিয়ে অন্য থানায় নিয়ে গিয়েছে। বোঝা যাচ্ছিল, আমাকে টার্গেট করা হয়েছে। বিজেপি শাসিক রাজ্যে মহিলারা নিরাপদ নন। আগরতলায় আমারও অভিজ্ঞতা হয়ে গেল।”

এক ইঞ্চিও জমি তৃণমূল ছাড়বে না বলে হুঁশিয়ারি দেন তৃণমূলের যুবনেত্রী। তিনি জানান,”অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় পাশে আছেন। দিদির সঙ্গে কথা হয়েছিল গতকাল। ওঁরাই এগিয়ে যাওয়ার পাথেয়।”

সায়নীর জামিনের পর তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ জানান, “রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরেই সায়নীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় জামিন পেলেন সায়নী।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

nineteen − ten =